সত্যিই কি এলিয়েন আছে ?

সত্যিই কি এলিয়েন আছে
সত্যিই কি এলিয়েন আছে ?  ছবি : wikimedia commons

আধুনিক বিজ্ঞান নিজেকে এমন উচ্চতায় নিয়ে গেছে যে, আমরা আমাদের মনে থাকা সকল প্রশ্নের উত্তর বিজ্ঞানকে জিজ্ঞাস করি এবং এর উত্তর বিজ্ঞান থেকে পাওয়ার আশা করি । কিন্তু সত্যি কি বিজ্ঞানের কাছে সকল প্রশ্নের উত্তর রয়েছে । 

অতি সাধারণ কিছু প্রশ্ন থেকে শুরু করে অনেক অসাধারণ প্রশ্নের উত্তরও এখন পর্যন্ত বিজ্ঞান খুঁজে বেড়াচ্ছে । যার উত্তর তাদের কাছেও নেই । এই রকম ১ টি অতি সাধারণ  প্রশ্ন সত্যিই কি এলিয়েন আছে ? 

সত্যিই কি এলিয়েন আছে? 

বর্তমান পৃথিবীর সবচেয়ে আলোচিত বিষয়ের একটি হলো এলিয়েন । এলিয়েনের অস্তিত্বে বিশ্বাসী মানুষের যেমন অভাব নেই, তেমনি ভাবে এলিয়েনের অস্তিত্বে অবিশ্বাসী মানুষের সংখ্যাও কম নয় । বিশ্বখ্যাত তাত্ত্বিক পদার্থ বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিংও এলিয়েনে বিশ্বাস করতেন ।

অনেক কন্সপিরেসি থিউরিস্ট তো কথিত মার্কিন বিমান ঘাটি এরিয়া ৫১ এবং বিভিন্ন সময়ে আকাশে দেখা যাওয়া আন আইডেন্টিফায়েড ফ্লাইং অবজেক্ট (ইউএফও) বা অজ্ঞাত উড়ন্ত বস্তু গুলোকে ভিনগ্রহের প্রাণী তথা এলিয়েনের সাথে সম্পর্কিত বলে মনে করেন । 

২০১৩ সালের আগে মানুষ আনুষ্ঠানিক ভাবে এরিয়া ৫১ সম্পর্কে কিছুই জানতো না । ইউ-টু নামের একটি বিমানের ব্যপারে গোপন তথ্য প্রকাশ করতে গিয়ে মার্কিন গুপ্তচর সংস্থা সি আই এ প্রথমবারের মতো আনুষ্ঠানিক ভাবে এরিয়া ৫১ এর কথা স্বীকার করেন । 

ষড়যন্ত্র তাত্ত্বিকদের মতে ১৯৪৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রের রসওয়েল নামক একটি শহরে বিধ্বস্ত হওয়া নমুনাগুলো এরিয়া ৫১ তে সংরক্ষিত আছে এবং সেখানে সেগুলো পরীক্ষা নিরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে । শুধু তাই নয় ভিনগ্রহের প্রাণীদের নিয়ে বিভিন্ন সময়ে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন  প্রেসিডেন্টদের মন্তব্য ছিল স্পষ্ট । যাতে প্রমাণ হয় ভিনগ্রহের প্রাণীর অস্তত্ব সত্যি রয়েছে ।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ট ট্রাম্প এক সাক্ষাতকারে বলে ছিলেন, এলিয়েনের ব্যপারে তিনি যা জানেন তা তিনি তার পরিবারের কাছেও প্রকাশ করবেন না । সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এক টিভি অনুষ্ঠানে বলেছিলেন, আমি দায়িত্ব নেওয়ার পর জিজ্ঞেস করেছিলাম, এমন কোন ল্যাবরেটরি কি আছে যেখানে আমরা ভিনগ্রহের প্রাণী ও তাদের স্পেসশিপের নমুনা রেখেছি ? তারা কিছু খোঁজখবর নিলেও, তারপর তা আমাকে জানানো হয়নি । 

সত্যিই কি এলিয়েন আছে
সত্যিই কি এলিয়েন আছে ?


২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসে ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয়ের অধীন মহাকাশ দপ্তরের সাবেক প্রধান স্থানীয় একটি পত্রিকাকে সাক্ষাতকার দিতে গিয়ে বলেছিলেন প্রেসেডিন্ট ট্রাম্প ভিন গ্রহের সাথে সম্পাদিত একটি চুক্তির কথা প্রকাশ করার কাছাকাছি চলে এসেছিলেন, কিন্তু মানুষের মধ্যে এ নিয়ে বেশি হৈচৈ পড়ে যাবে এই ভয়ে শেষ পর্যন্ত পিছিয়ে আসেন ।

ইয়েদিওত আহারোনত পত্রিকাকে তিনি আরো বলেন মার্কিন সরকার এবং ভিন গ্রহের প্রানীদের মধ্যে একটি চুক্তি হয়েছে । তারা এখানে একটি পরীক্ষা নিরীক্ষা চালানোর জন্য এসেছে । 

আরো পড়তে পারেন

এরিয়া ৫১ তে কাজ করেছেন এরকম এক ব্যাক্তি বব লাজার ১৯৮৯ সালে টেলিভিশনে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে  এরিয়া ৫১ তে পৃথিবীতে নেমে আসা কিছু এলিয়েনকে আটকে রাখার কথা স্বীকার করেছেন । 

তিনি কোন সুনির্দিষ্ট প্রমান হাজির করতে না পারার কারণে তৎকালীন মিডিয়াগুলো তার দাবি নাকচ করে দেন । তবে সম্প্রতি নেটফ্লিক্স তার উপর একটি তথ্য চিত্র প্রকাশ করে যাতে তার দাবির সত্যতার পরিচয় পাওয়া যায় । 

গত সেপ্টেম্বর মাসে জ্যাকসন বার্নেস নামক এক ব্যাক্তি মজা করার জন্য ফেসবুকে একটি ইভেন্ট খোলেন । যার নাম দেওয়া হয় স্টার্ম এরিয়া ৫১ , দ্য ক্যান্ট অল অফ আস অর্থ্যাৎ চলো যাই এরিয়া ৫১, তারা আমাদের  সবাইকে থামাতে পারবে না । 

আশ্চার্যের বিষয় হলো অল্প কয়েক দিনের মধ্যেই এই ইভেন্টে ২৫ লাখের মতো মানুষ সাইন আপ করে । এরকম পরিস্থিতিতে মার্কিন বিমান বাহিনীর পক্ষ থেকে লোকজনকে সর্বোচ্চ সতর্ক বার্তা দেওয়া হয় । কেউ যেন এরিয়া ৫১ এর ধারে কাছেও না যায় । বিমান বাহিনীর একজন মুখপাত্র ওয়াশিংটন পোস্ট কে বলেছেন তারা এই ইভেন্ট হতে দিবেন না । 

তিনি বলেন, আমরা যে কোন কিছুর বিনিময়ে আমেরিকা ও তার সম্পদ রক্ষা করবো । এই সকল কারণে পরবর্তীতে এই ইভেন্ট আর আয়োজিত হয় নি । এখন প্রশ্ন হলো এরিয়া ৫১ তে এমন কি আছে যার কারণে কথিত বিমান প্রশিক্ষণ কেন্দ্রটির এতটা গোপনীয়তা বজায় রাখা প্রয়োজন ।

ষড়যন্ত্র তাত্ত্বিকদের মতে, আমেরিকা আসলে এরিয়া ৫১ এর মধ্যে ভিনগ্রহের প্রাণীদের লুকিয়ে রেখেছে । যা তারা সাধারণ মানুষের কাছ থেকে কঠোর ভাবে গোপন রাখতে চায় । তবে শক্ত কোন প্রমাণ না থাকায় এবং সরকারগুলোর বিভিন্ন বিধি নিষেধ থাকার কারণে এলিয়েনের সত্যতা বিজ্ঞান মহলে সুপ্রতিষ্ঠিত নয় । 

আরো পড়তে পারেন

জুয়েল

দেওয়ার মতো কোনো পরিচয় নেই। অনার্স শেষ করে আপাতত বাংলাদেশ বেকার কোম্পানির ম্যানেজার হিসেবে মশা-মাছি তাড়াচ্ছি। তবে স্বপ্ন আছে অন্বেষা.নেট - কে শ্রেষ্ঠ শিক্ষা বিষয়ক বাংলা ব্লগে পরিণত করা এবং শিক্ষার্থীদের মেধাকে বাজারের নিম্নমানের নোট গাইড থেকে রক্ষা করা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন